বজ্রপাত থেকে বাঁচতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ৭ পরামর্শ জেনে নিন

  • 212
    Shares

SA বাংলা নিউজ

সম্পাদক ও প্রকাশক

সুমন আখন্দ শুভ

রিপোর্ট – সালমান শুভ


দেশে বজ্রপাতে প্রাণহানি আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। সম্প্রতি সারাদেশে বজ্রপাতে মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় সাবার মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

রোববার (৬ জুন) একদিনে সারাদেশে প্রায় ২৩ জনের মারা যাওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। একই দিন বজ্রপাতে মৃত্যু বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর বজ্রপাতে মৃত্যু বা হতাহতের ঘটনা এড়াতে কিছু নির্দেশনা দিয়েছে।

অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক মোহাম্মদ রোবেদ আমিন বলেছেন, ‘বাংলাদেশে সাধারণত এপ্রিল থেকে মে মাসে সর্বোচ্চ হলে জুন মাস পর্যন্ত বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। বজ্রপাত একটি আকস্মিক ঘটনা, যা প্রতিরোধ করা অত্যন্ত কঠিন।’

বজ্রপাতে হতাহত এড়াতে অধ্যাপক রোবেদ আমিনের ৭ পরামর্শ জেনে নিন-

১. বজ্রপাতের সময় ধানক্ষেত বা খোলার মাঠে যদি থাকেন তাহলে পায়ের আঙুলের ওপর ভর দিয়ে এবং কানে আঙুল দিয়ে নিচু হয়ে বসে পড়তে হবে।

২. বজ্রঝড় সাধারণত ৩০ থেকে ৩৫ মিনিট স্থায়ী হয়। এ সময়টুকু ঘরে অবস্থান করুন। অতি জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে যেতে হলে রাবারের জুতা পরে বাইরে যাবেন। এটি বজ্রঝড় বা বজ্রপাত থেকে সুরক্ষা দেবে।

৩. বজ্রপাতের আশঙ্কা দেখা দিলে যতো দ্রুত সম্ভব ভবন বা কংক্রিটের ছাউনির নিচে আশ্রয় নিতে হবে। ভবনের ছাদে বা উঁচু ভূমিতে যাওয়া উচিত হবে না।

৪. বজ্রপাতের সময় যেকোনো ধরনের খেলাধুলা থেকে শিশুকে বিরত রাখতে হবে। ঘরের ভেতরে অবস্থান করতে হবে।

৫. বজ্রপাতের সময় ছাউনিবিহীন নৌকায় মাছ ধরতে না যাওয়া উচিত। সমুদ্র বা নদীতে থাকলে মাছ ধরা বন্ধ রেখে নৌকার ছাউনির নিচে আশ্রয় নিতে হবে।

৬. যদি কেউ গাড়ির ভেতর অবস্থান করেন, তাহলে গাড়ির ধাতব অংশের সঙ্গে শরীরের সংযোগ রাখা যাবে না।

৭. খালি জায়গায় যদি উঁচু গাছপালা, বৈদ্যুতিক খুঁটি, ধাতব পদার্থ বা মোবাইল টাওয়ার থাকে, তার কাছাকাছি থাকবেন না। বজ্রপাতের সময় গাছের নিচে থাকা বিপজ্জনক।

SA BANGLA NEWS

DhAKA